মেনু নির্বাচন করুন
বিজ্ঞাপন

ক্রীতদাসের হাসি

উপন্যাসের কাহিনী শুরু হয়েছে হাবসী গোলাম তাতারী আর বাদী মেহেরজানের প্রেমময় হৃদয় উৎসারিত হাস্যকলরোল মধ্য দিয়ে। দ্বন্দ-বিক্ষুব্দ্ধ বাদশাহ হারুনর রশীদ হাবশী গোলাম তাতারীর হাসি শুনে ভয়ানক ইর্ষান্বিত হন। বাদশার মুখে হাসি নেই আর গোলামের মুখে হাসি? বাদশাহের সুকৌশলী নির্যাতনের খড়গ নেমে আসে তাতারী আর মেহেরজানের উপর। উপন্যাসের শুরু, শেষ, মাঝের ছত্রে ছত্রে নাটকীয়তার তীক্ষ্ণ বাঁক আপনাকে চমকে চমকে দেবে। উপন্যাসের শেষটা এতটাই নাটকীয় যে তাতারীর কথাগুলো এখনোও যেন কানে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে......তাতারীকে কোড়া(চাবুক) মারা হচ্ছে আর তাতারী চিৎকার করে বলছে-- "শোন হারুনর রশীদ,দীরহাম দৌলত দিয়ে ক্রীতদাস গোলাম কেনা চলে, বান্দী কেনা সম্ভব--! কিন্তু-- কিন্তু--ক্রীতদাসের হাসি-- না-না- না-না---"

ছবি (এই বিজ্ঞাপনটি স্লাইড ব্যানারে দিতে চাইলে অবশ্যই ছবি দিতে হবে)


প্রকাশের তারিখ

২০১৭-১১-২৮

আর্কাইভের তারিখ

২০১৮-১২-৩১

স্লাইড

1



Share with :

Facebook Twitter